ইচ্ছা পূরণ অশ্রু
সুজন দেবনাথ (অব্যয় অনিন্দ্য)

//
ইচ্ছা পূরণ অশ্রু
সুজন দেবনাথ (অব্যয় অনিন্দ্য)

ইচ্ছা পূরণ অশ্রু
সুজন দেবনাথ (অব্যয় অনিন্দ্য)

আপনি কাঁদছেন? কাঁদুন, চিৎকার করে কাঁদুন, কান্না অনেক ভালো জিনিস, কান্না হিরন্ময়ী।

বিশ্বাস হচ্ছে না? একবার ঝিনুকের দিকে তাকান। পৃথিবীতে যে প্রাণীটি সবচেয়ে ইফেক্টিভলি কাঁদতে পারে, সেটি হলো ঝিনুক। কান্নায় ঝিনুকের কষ্টগুলো মুক্তা হয়ে যায়। ঝিনুকের যা দাম, তা ওর অশ্রুর জন্যই। তাই কাঁদতে হলে ঝিনুকের মতো কাঁদুন। সেই কান্নায় শুধু তরল অশ্রু নয়, ঝরতে হবে কঠিন ঘুরে দাঁড়ানোর শক্তি। অশ্রুকে মুক্তা করতে না পারলে সেই কান্না অসহায়, সেই কান্না কেউ শুনবে না, ব্যস্ত পৃথিবীর কঠিন রাস্তায় গাড়ির চাকায় শুকিয়ে যাবে সেই অশ্রু। আর আপনার আজকের কান্নায় যদি ঝিনুকের গুণ থাকে, তাহলে একদিন আপনার কান্নার ইতিহাস জানতে লাইন ধরবে নামী-দামী সাংবাদিক; আপনার কান্না নিয়ে হবে সাহিত্য; নামী পরিচালকরা তৈরি করবে আপনার বায়োপিক আর সেখানে আপনার মতো কাঁদতে না পারার জন্য বাদ পরবে অনেক নামী অভিনেতা। তাই কাঁদুন, বুক ভাসিয়ে কাঁদুন; প্রতিটি অশ্রুবিন্দুতে ঘুরে দাঁড়ানোর শক্তি ঝরিয়ে ঝরিয়ে কাঁদুন। পাল্টে দেবার অঙ্গীকার নিয়ে কাঁদুন। সেই অঙ্গীকারে আপনি একদিন আবার কাঁদবেন, কিন্তু সেদিনের কান্না কষ্টের নয়, হবে আনন্দের – সেই অশ্রুর নাম হবে ‘ইচ্ছা পূরণ অশ্রু’।

 

বিশ্বাস করুন – আপনিও আসলে ঝিনুকবিদ্যা নিয়েই জন্মেছেন, আপনিও ঝিনুকের মতোই পারেন কান্নাকে হাসিতে পরিণত করতে। জন্মের সাথে সাথেই আপনি কেঁদেছিলেন। সেদিন আপনার সেই প্রথম কান্নায় একটা গোপন ঝিনুকবিদ্যা ছিল। সেদিন আপনার কান্না সবাইকে হাসিয়েছিল, সেদিন আপনার চিৎকার সবার মনে মুক্তা ছড়িয়ে দিয়েছিল। তার মানে কান্নাকে হাসিতে পরিণত করার শক্তিটা আপনার জ্বীনেই আছে। তো আর একবার সেই শক্তিটা কাজে লাগান। একবার চোখ বন্ধ করে আপনার নিজের জীবনের দিকেই তাকান – এই জীবনেই আপনি অনেক বার ঘুরে দাঁড়িয়েছেন, অনেক কষ্টকে জয় করেছেন। অনেক অনেক প্রতারকের আঘাতকে আপনি তুচ্ছ ভেবে ভুলে গেছেন, অনেক অনেক অনাকাংখিত দুঃখকে পেছনে ফেলেই আজকের জায়গায় দাঁড়িয়ে আছেন আপনি। আসলে আপনি অবচেতন মনেই অনেকবার ঝিনুকবিদ্যা ব্যবহার করেছেন। আজ পারবেন না?

এবারের কষ্টটা কি এতো বেশি? মনে হচ্ছে সব শেষ হয়ে গেলো? আসলে তা নয়। আগে আপনি অবচেতন মনে ঘুরে দাঁড়িয়েছেন, এবার সচেতন মনে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। আগে অনেকবার না চাইতেই পেরেছেন, এবার নিজে ইচ্ছা করে কি সেটা পারবেন না?

অবশ্যই পারবেন, কেননা –

একটি ইচ্ছা পূরণ অশ্রু হাতছানি দিয়ে ডাকছে – আপনাকে।

2018-11-05T16:07:00+06:00 July 17th, 2018|Categories: অনুপ্রেরণার গল্প|Comments Off on
ইচ্ছা পূরণ অশ্রু
সুজন দেবনাথ (অব্যয় অনিন্দ্য)